নতুন ট্রাফিক নিয়ম 2020-21 ও আপনার অধিকার (New Traffic rules and your rights)

3

আজকে আমরা আলোচনা করব নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ কে নিয়ে। নতুন ট্রাফীক নিয়ম বা নতুন সড়ক পরিবহন আইনে অনেক কিছু পরিবর্তন হয়েছে।

সড়ক নিরাপত্তা আইনে এই প্রথম নয়,জনগণের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে সরকার এর আগে বহুবার সড়ক নিরাপত্তা আইনে রদবদল নিয়ে এসেছে।

নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী যে বিষয় গুলো রদবদল করা হল,সেই সমস্ত বিষয় গুলোই আপনাদের সামনে তুলে ধরা হবে।

আমরা সবাই কম বেশি ড্রাইভ করি ঠিকই,কিন্তু আমরা অনেকেই নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ নিয়ে সেরকম ভাবে কিছুই জানিনা।

বাইক চালাতে গিয়ে কখনো হয়তো হেলমেট লাগাতে ভুলে গেছেন,সামনে দেখলেন কোনো ট্রাফিক পুলিশ সামনে দাঁড়িয়ে ফাইন কাটছে।

তখন সাইডে গিয়ে ১০০ টাকা ধরিয়ে দিয়ে মামলা দফা রফা করে নিলেন। এতে আপনিও খুশি আর পুলিশও খুশি। এটা কিন্তু একেবারে ভুল।

ট্রাফিক আইন বানানো হয়েছে আপনার সুরক্ষার জন্য। আপনি যাতে সুস্থ স্বাভাবিক ভাবে রাস্তায় সফর করতে পারেন সেই জন্য।

তাই ট্রাফিক নিয়ম কিংবা ট্রাফিক সিগন্যাল ভেঙে পুলিসের হাত থেকে বেঁচে পালানোটা কোন বাহাদুরী নয়। নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ মেনে গাড়ি চালানোটাই বাহাদুরি।

আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ সমন্ধে বিস্তারিত ভাবে সবকিছু, নতুন ট্রাফিক আইন ও জরিমানার তালিকা ইত্যাদি বিষয় গুলো।

নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ / সড়ক নিরাপত্তা আইন


 আমরা এখানে প্রথমে জানব নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী ট্রাফিক আইন জরিমানা মোটরসাইকেলে ও অন্যন্য যানবাহনে কত জরিমানা কিংবা চালান কাটা হয়,

ট্রাফিক আইন কত প্রকারের,ট্রাফিক সিগন্যাল কত প্রকারের এই সমস্ত ব্যাপারে। আপনাদের জেনে রাখা ভালো ট্রাফিক আইন অনুযায়ী ট্রাফিক আইন ভাঙলে,

চালান কাটার অধিকার শুধু মাত্র ট্রাফিক পুলিশকে দেওয়া হয়েছে। কিন্ত আমরা হামেশাই দেখতে পায় ট্রাফিক আইনের নাম করে বেশির ভাগ পুলিশ যেখানে,সেখানে টাকা তোলে।

নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ অনুযায়ী ট্রাফিক পুলিশ কিংবা ট্রাফিক সার্জেন্ট,ট্রাফিক সিগন্যাল ভাঙলে আপনাকে ফাইন করতে পারে।

কিন্তু আমরা হামেশাই দেখতে পায় ট্রাফিক আইন ভাঙার নাম করে যে কেউ টাকা তুলছে। এরকম হওয়ার একটাই কারণ আমাদের ট্রাফিক আইন সমন্ধে না জানা।

নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০

আমাদের অজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে পুলিশ টাকা তুলছে। এইরকম ঘটনার সম্মুখীন যদি হন তাহলে ভদ্রভাবে আপনি পুলিশকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন,

স্যার আপনি কি ট্রাফিক পুলিশ ? তাহলে দয়াকরে আপনার পরিচয় পত্রটি দেখান। মনে রাখবেন ট্রাফিক আইন অনুযায়ী ট্রাফিক আইন ভাঙার জন্য শুধু ট্রাফিক পুলিশ ফাইন কাটবে,

অন্য কোনো পুলিশ চাইলে আপনার কাছ থেকে টাকা ফাইন করতে পারেনা। সাধারণত ট্রাফিক পুলিশরা সাদা ড্রেস পরিধান করে থাকে। তাই ট্রাফিক পুলিশ চিনতে আপনাদের দেরি না লাগারই কথা।

আরো পড়ুন : ২০২১ এর ঈদের শুভেচ্ছা বার্তা কবিতা স্ট্যাটাস এস এম এস বাংলা।  

অন্যান্য বাহন সহ নতুন ট্রাফিক আইন জরিমানা মোটরসাইকেল ২০২০ 


নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী ট্রাফিক আইন জরিমানা মোটরসাইকেল ও অন্যান্য বাহনে বেশ ভারী মাত্রার ফাইন নির্ধারণ করা হয়েছে।

নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০অনুযায়ী ট্রাফিক আইন ও জরিমানার তালিকা (বড়ো জরিমানা)

নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী বড় জরিমানা গুলো হলো –

০১. যদি কোন অপ্রাপ্ত বয়স্ক যুবক Car বা Bike চালায়,সেই ক্ষেত্রে ট্রাফিক আইন জরিমানা মোটরসাকেলের জন্য ট্রাফীক পুলিস ২৫,০০০ টাকা জরিমানা করবে এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কের বাবা ও মায়ের ০৩ বছর জেল হবে।

০২.  এবার আসা যাক সবার কমন প্রশ্নে,ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে জরিমানা কত দিতে হবে। তাহলে বলে রাখি ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকার জন্য ৫,০০০ টাকার জরিমানা দিতে হবে।

০৩.  ড্রিংক ড্রাইভ কেসে মদপ্য অবস্থায় গাড়ি চালানোর জন্য ট্রাফিক আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী ১০,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৪. Emergency Vehicle,যেমন- এম্বুলেন্স,ফায়ার ব্রিগেড,পুলিশ পেট্রোলিং ভ্যান ইত্যাদি বাহনের রাস্তা অবরোধ করলে ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী ১০,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৫. গাড়ী চালানোর সময় Seat Belt এবং মোটরসাইকেল চালানোর সময় হেলমেট না লাগালে ১,০০০ টাকার চালান কাটা হবে।

০৬. Dangers Driving plenty ও Speeding /Car Racing plenty হিসাবে নতুন ট্রাফিক আইন অনুযায়ী ৫,০০০ টাকার চালান কাটা হবে।

০৭. বিনা Permit এ গাড়ি চালালে ১০,০০০ টাকার চালান কাটা হবে।

০৮. নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী মোটরসাইকেলে দুই জনের বেশি প্যাসেঞ্জার চাপানো যাবে না। যদি মোটরসাইকেলে দুই জনের জায়গায় তিন জন চড়ার জন্য,

ট্রাফিক পুলিস আপনার কাছ থেকে ২,০০০ টাকার চালান এবং ০৩ মাসের জেলসহ ড্রাইভিং লাইসেন্স সিজ করে নিতে পারে।

আরো পড়ুন: গ্রেফতার নিয়ম এবং আপনার অধিকার। 

ট্রাফিক আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী ট্রাফিক আইন ও জরিমানার তালিকা (ছোটো জরিমানা )

ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী সড়ক নিরাপত্তা আইন অনুযায়ী বেশ কিছু ছোট ছোট জরিমানা রয়েছে-

০১. মোটরসাইকেলের পিছনে বসে থাকা ব্যাক্তি যদি বিনা হেলমেটে মোটরসাইকেলে ট্রাভেল করে,সেক্ষেত্রে ২,০০ টাকার চালান ভরতে হবে।

০২. ড্রাইভ করার সময়,আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সটি যদি ভুল করে বাড়িতে ফেলে আসেন,সেক্ষেত্রে  আপনাকে জরিমানা বাবদ ১,০০ টাকার চালান ভরতে হবে।

ট্রাফিক নিয়ম ও জরিমানার তালিকা। 1 1

০৩. আপনার গাড়ীর R.C.কাগজ আপনার কাছে যদি Original না থাকে। তাহলে আপনাকে ১,০০ টাকার চালান দিতে হবে। কিন্তু পরে আপনাকে Original R.C.কাগজ থানায় দেখিয়ে আসতে হবে।

০৪. ট্রাফিক আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী ইন্সুরেন্স পেপার কাছে না থাকলে পুলিশ আপনার কাছ থেকে ২,০০০ টাকার চালান কাটতে পারে। কিন্তু সত্বর আপনাকে থানায় ইন্সুরেন্স কপি জমা করে আসতে হবে।

০৫. ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী,গাড়ীর ইন্সুরেন্স ফেল থাকলে পুলিশ আপনাকে ২,০০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

০৬. চার চাকায় ড্রাইভ করার সময়,ড্রাইভারে পাশে বসে থাকা ব্যক্তি সিট্ বেল্ট না লাগায়,সেক্ষেত্রে ট্রাফিক পুলিশ ৩,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

৭. চার চাকা বাহনে লাল এবং নীল বাতি ব্যবহার করলে সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী ১,০০ টাকার চালান পুলিশ আপনার কাছ থেকে আদায় করবে।

০৮. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী গাড়ি চালানোর সময় মোবাইলে কথা বললে ট্রাফিক পুলিশ আপনার কাছ থেকে ৫,০০ টাকার চালান আদায় করবে।

৯. ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী আপনার গাড়ির যদি Pollution Certificate না থাকে সেক্ষেত্রে পুলিশ আপনার কাছ থেকে ২,৫০ টাকা জরিমানা আদায় করবে।

১০. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী গাড়ীতে Reflector লাগানো না থাকলে ৫,০০ টাকার জরিমানা পুলিশ আপনার কাছ থেকে আদায় করবে।

আরো পড়ুন: Postmortem কে ময়নাতদন্ত বলা হয় কেন। 

সড়ক নিরাপত্তা আইন অনুযায়ী আরো অন্যান্য জরিমানা


সড়ক নিরাপত্তা আইন অনুযায়ী আরো অন্যান্য জরিমানা গুলো হল –

০১. নতুন সড়ক পরিবহন আইন অনুযায়ী গাড়ির ফিটনেস পেপার যদি না থাকে সেক্ষেত্রে আপনাকে ট্রাফিক পুলিশকে ২,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০২.নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী নো এন্ট্রিতে গাড়ি চালালে ট্রাফিক পুলিশ আপনার কাছ থেকে ২,০০০ টাকা জরিমানা আদায় করবে।

০৩. নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী, পুলিশ যদি রাস্তার মোড়ে হাত দেখিয়ে আপনাকে গাড়ি সাইড করার জন্য বলে,আপনি যদি গাড়ি সাইড না করেন,তাহলে পুলিশ ৫,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

০৪. পুলিস যদি রাস্তার মোড়ে হাত দেখিয়ে গাড়ী সাইড করার জন্য বলে, আর আপনি যদি তা না করেন তাহলে আপনার কাছে পুলিস ৫,০০ টাকা জরিমানা আদায় করতে পারে।

০৫. নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে,তার জন্য ৫,০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৬. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ অনুযায়ী আপনি যদি ট্রাফিক সিগন্যাল,রাস্তার নিয়ম না মানেন,তার জন্য আপনাকে ১,০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৭. সড়ক নিরাপত্তা আইন অনুযায়ী নো পার্কিং এ গাড়ি পার্ক করার জন্য আপনাকে ১,০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৮. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী রাতের বেলা গাড়ি চালানোর সময় হেড লাইট না জ্বালালে,কিংবা আপনার গাড়ির হেড লাইট খারাপ থাকলে আপনাকে ১,০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

০৯. ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী প্রেসার হর্ন অথবা বিকট আওয়াজের হর্ন গাড়িতে ব্যবহার করলে আপনাকে ১,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

১০. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী নো হর্ন এরিয়া,যেমন -স্কুল,আদালত,হাসপাতাল ইত্যাদি জায়গায় হর্ন বাজানো কঠোর ভাবে নিষেধ। এই সমস্ত জায়গায় ট্রাফিক নিয়ম ভাঙার জন্য ১,০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

১১. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০-২১ অনুযায়ী জনবহুল এলাকায় Rash ড্রাইভিং/ওভার স্পীডে গাড়ি চালানোর জন্য ১,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।

১২. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী আপনি যদি আপনার গাড়ি অন্য কাউকে ড্রাইভ করার জন্য দেন, যার ভ্যালিড ড্রাইভিং লাইসেন্স নাই, সেই ক্ষেত্র গাড়ির মালিক মানে আপনাকে ১,০০০ টাকা ফাইন দিতে হবে।

১৩. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী আপনি যদি আপনার গাড়ির হুডের উপর লাগেজ চাপিয়ে বেশি উঁচু করে বেঁধে নিয়ে যান, সেই জন্য ওভার লাগেজ ফাইন বাবদ ১,০০ টাকা দিতে হবে।

১৪. অনেক সময় রাস্তার মোড়ে ট্রাফিক সিগন্যাল খারাপ থাকে,তখন ট্রাফিক পুলিশ হাত দিয়ে ম্যানুয়ালি ট্রাফিক সিগন্যাল মেন্টেন করেন।

আপনি যদি পুলিশের হাত দেখানোর পরেও ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করেন,তার জন্য পুলিশ আপনাকে নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী পুলিশ ১,০০ টাকার  চালান কাটবে।

১৫. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০-২১ অনুযায়ী,শহরী এলাকায় High Beam এ গাড়ী চালানোর জন্য ১,০০ টাকার চালান কাটা হবে।

ট্রাফিক নিয়ম ও জরিমানার তালিকা। 2 1

১৬. পুলিস যদি আপনার গাড়ীর কাগজ দেখতে চায়। আর আপনি গাড়ীর কাগজ দেখানো নীয়ে পুলিসের সাথে বচসা করেন,তাহলে পুলিস আপনার কাছে ৫,০০ টাকার চালান কাটাতে পারে।

১৭. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী Over Speed Limit এরীয়া, মানে যে সমস্ত জায়গায় গাড়ি চালানোর জন্য গতি সীমা নির্ধারণ করা আছে।

যেমন -স্কুল,হাসপাতাল ইত্যাদি জায়গায় সর্বোচ্চ গতিসীমা ২০ কিমি সাইনবোর্ড লেখা থাকে। সেই সমস্ত জায়গায় ওভার স্পীডে গাড়ি চালানোর জন্য ২,০০০ টাকা ফাইন দিতে হবে।

১৮. এখনকার দিনে গাড়ি ডেকোরেট করা একটা ফ্যাশানে দাঁড়িয়ে গেছে। কিন্তু আপনার জেনে রাখা ভালো গাড়িতে আপনি যদি ঝা চকচকে,

এলিডি লাইট ব্যবহার করে গাড়ি সাজান,যেগুলি মানুষের চোখে লাগে,এইধরণের গাড়ি ডেকোরেশন করার জন্য ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী পুলিশ আপনার কাছ থেকে ১,০০ টাকার চালান নিতে পারে।

১৯. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী আপনার বাহনের সাইলেন্সর যদি খারাপ থাকে। আর গাড়ী থেকে যদি ধোঁয়া কিংবা বিকট শব্দ বার হয় তার জন্য পুলিস আপনার কাছ থেকে ১,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

২০. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী,আপনি যদি Learning License নীয়ে গাড়ী চালান। আর আপনার পাশের সিটে,

যদি একজন Permanent License ধারী ব্যাক্তি না থাকে। তবে সেই জন্য আপনার কাছ থেকে পুলিস ১,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

২১. সড়ক নিরাপত্তা আইন ২০২০ অনুযায়ী,আপনি যদি Learner Driver হন সে ক্ষেত্রে আপনাকে গাড়ির পিছনে লাল রঙে L লিখতে হবে।

আর এই লেখাটি কোন কারণে যদি আপনি না লেখেন,তার জন্য আপনার কাছ থেকে পুলিস ১,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

২২. নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী,Wrong Side এ গাড়ী চালানোর জন্য পুলিস আপনার কাছ থেকে ১,০০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

২৩. সড়ক নিরাপত্তা আইন ২০২০ অনুযায়ী,রাস্তায় চলাকালীন যে সমস্ত যায়গায় “U”-turn allow নেই,সেই জায়গায় আপনি যদি “U”-turn নেন, তার জন্য পুলিস আপনার কাছে থেকে ১,০০ টাকার চালান কাটতে পারে।

আরো পড়ুন : সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনার লাভ।

নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী আপনার কিছু অধিকার


সরকার যখন কোন আইন পাস করে বা সংশোধন করে, তখন সেই আইন প্রনোয়নের একটাই উদ্দেশ্য থাকে  জনতার ভালো করা,সমাজের কল্যান করা।

তাই আইন একদীকে যেমন জনতাকে নিয়মের শৃঙ্খলে বেঁধে রাখে,অপরদিকে তেমনি জনতাকে মৌলিক কিছু অধিকার ও প্রদান করে।

আসুন তবে জেনে নেওয়া যাক নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী সংবিধান সাধারণ মানুষের স্বার্থে কি কি সামান্য অধিকার দিয়ে রেখেছে।

০১. ট্রাফিক আইন ২০২০ Sec-130 অনুযায়ী পুলিশ যদি আপনার গাড়ীর পেপার দেখতে চায়। তাহলে আপনি আপনার গাড়ির পেপার পুলিসকে দেখান। কিন্তু পুলিশকে গাড়ির পেপার হাতে তুলে দেওয়ার কোনো দরকার নেই।

০২. নতুন ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী,আপনার মধ্যে যদি কোন রকম খামতি পায় তার জন্য পুলিস আপনার নামে চালান কাটতে পারে।

লাইসেন্সে গাড়ি চালানো আইনত অপরাধ। 1

০৩.নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ আইনে,আইন আপনাকে কিছু সুবিধা প্রদান করে রেখেছে। মনে করুন আপনার গাড়ির ইন্সুরেন্স শেষ হয়ে গেছে,

আর আপনি হেলমেট পড়েন নি। এরকম কেশে পুলিশ আপনার কাছে ফাইন আদায় করবে ঠিকই। কিন্তু আলাদা আলাদা ফাইনের জন্য পুলিশ আলাদা আলাদা দু-খানা চালান কাটবে।

সড়ক পরিবহন আইন অনুযায়ী পুলিশ,আলাদা আলাদা ফাইনের জন্য একটি চালান বুকে দুটি অপরাধের  চালান কাটতে পারবেনা। আলাদা আলাদা ফাইনের জন্য আলাদা আলাদা চালান কাটতে হবে।

০৪. নকল পুলিশ সন্দেহ হলে আপনি অতি নম্রতার সাথে,পুলিশের কাছ থেকে তার পরিচয় পত্র দেখতে চাইতে পারেন।

পুলিশ যদি তার পরিচয় পত্র দেখাতে অস্বীকার করে,তাহলে আপনি চালান না কেটে অফিসিয়ালি ঐ পুলিশের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করতে পারেন।

০৫. সড়ক নিরাপত্তা আইন অনুসারে,কোন পুলিশ আধিকারিক যদি ট্রাফিক নিয়ম না মানে,তার জন্য ঐ পুলিশ আধিকারিকের ভিডিও বানিয়ে আপনি নালিশ করতে পারেন।

নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০২০ অনুযায়ী পুলিসকে ট্রাফিক নিয়ম উলঙ্ঘন করার জন্য সাধারণ জনতার থেকে ডবল ফাইন দিতে হবে। যেমন-কোনো ফাইন আপনার জন্য ১০০ টাকা হলে পুলিশকে ২০০ টাকা দিতে হবে।

০৬.নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী,আপনার ড্রাইভিং লাইসেনেন্সের বৈধতা যদি শেষ হয়ে যায়,সেই ক্ষেত্রে লাইসেন্স রিনিউ করার জন্য ০১ বছররে সময় দেওয়া হয়। পুরোনো ট্রাফিক নিয়মে রিনিউ করার জন্য ০১ মাস সময় দেওয়া হত।

০৭. নতুন সড়ক পরিবহন আইনে আপনি আপনার গাড়ির প্রয়োজনীয় পেপার RC, License, Insurance etc.সফট কপি ভারত সরকারের মান্যতা প্রাপ্ত মোবাইল অ্যাপ ডিজি লকার ও এম.পরিবহন এ রাখতে পারেন।

০৮.গাড়ি চালানোর সময় পুলিস যদি ট্রাফীক নিয়ম সংক্রান্ত কোন ব্যাপারে আপনাকে গ্রেফতার করে। তাহলে আপনাকে গ্রেফতার করার ২৪ ঘন্টার মধ্যে Judicial Magistrate এর কাছে পেস করাতে হবে।

০৯. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী পুলিশ আপনার সঙ্গে যদি অসৎ /খারাপ ব্যাবহার করে,সেই ক্ষেত্রে আপনি পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারেন।

১০. সড়ক নিরাপত্তা আইন ২০২০ অনুযায়ী গাড়ি চালানোর সময় আপনার যদি গাড়ির RC ও license না থাকে, সেই ক্ষেত্রে পুলিশ আপনার গাড়ি বাজেয়াপ্ত করতে পারে।

১১. ট্রাফিক আইন ২০২০ অনুযায়ী রং পার্কিং এ গাড়ি পার্ক করছেন,এরকম অবস্থায় যতক্ষণ আপনি গাড়ির চালক আসনে বসে থাকবেন,পুলিশ আপনার গাড়ি টো করতে পারবেনা।

১২. নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ অনুযায়ী মদ্যপ অবস্থাই গাড়ি চালালে,পুলিশ চাইলে আপনার গাড়ি এবং লাইসেন্স দুই বাজেয়াপ্ত করতে পারে।

আরো পড়ুন : ভারতের বিভিন্ন গাড়িতে বিভিন্ন রঙের নাম্বার প্লেটের রহস্য। 

পরিশিষ্ট


এই ছিল নতুন ট্রাফিক নিয়ম ২০২০ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যাদি। আমার বিশ্বাস এই পোস্টের মাধ্যমে আপনাদিকে ভারতের ট্রাফিক নিয়মের ব্যাপারে কীছুটা হলেও অবগত করাতে পেরেছি।

যদি লেখাটির মধ্য দীয়ে আপনাদের নুন্যতম উপকার হয়, তাহলে নিজেকে ধন্য মনে করব। এরকম নতুন আরও কীছু যদি জানার আগ্রহ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ।

3 COMMENTS

    • সাধনরণত গাড়ি কেনার পর ১৪ দিনের মধ্যে আপনাকে গাড়ির মালিকানা হক পরিবর্তন করতে হবে। কিন্তু যদি কোনো কারণ বসত মালিকানা হক পরিবর্তন না হয়ে থাকে,আর গাড়িটির দ্বারা কোন অপরাধ মূলক কাজ হয়ে না থাকে,তাহলে আপনাকে পুলিশ ১০০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করতে পারে। কিন্তু গাড়িটির মালিকানা হক পরিবর্তন হয়নি কিন্তু গাড়িটিতে এক্সিডেন্ট,ইন্সুরেন্স ফেল ইত্যাদি কেস গুলো হয়ে থাকে তাহলে পুলিশ আপনার কাছ থেকে আরো বেশি অংকের জরিমানা নিতে পারে প্রয়োজনে আপনাকে সাজা পর্যন্ত হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here